কুড়ি বছরের পুরোনো কিছু কম্পিউটার গেমস - Old is gold

in hive-129948 •  5 days ago 


Copyright free image source : Pixabay


১৯৯৯ সালের ডিসেম্বর মাসে আমাদের বাড়িতে প্রথম কম্পিউটার ঢোকে । এই সাথে কম্পিউটার গেমসের রঙিন দম বন্ধ করা উত্তেজক দুনিয়ার সাথে আমার প্রথম পরিচয় ঘটে । যেদিনই বাড়িতে কম্পিউটার ঢোকে সেদিনই সন্ধ্যায় গেম খেলি । তবে, প্রথম প্রথম তো, আর খুবই ছোট ছিলাম তাই নিজে শুধু কী-বোর্ডের একটি কী চেপে ধরে বসেছিলাম । বাকি খেলাটুকু দাদাই চালিয়ে নেয় ।

আমার জীবনে প্রথম খেলা কম্পিউটার গেমের নাম হলো Road Rash । এটি একটি মোটরসাইকেল রেসিং গেম । অসম্ভব জনপ্রিয়তা পায় গেমটি তখন । আমার কাছেও এটি ছিল খুবই প্রিয় একটি গেম । তখনকার সময়ে মাউস ছিল বল মাউস । মাউসের ভিতরে প্লাস্টিকের কোটিং দেওয়া একটি বড় সাইজের লোহার নিরেট গুলি থাকতো । এই গুলির দু পাশে ভার্টিক্যালি আর হোরাইজান্টালি দুটি চাকা ওয়ালা প্লাস্টিকের রোলার থাকতো । মাউস টা মাউস প্যাডের ওপর এদিক ওদিক করলে লোহার বলটি ঘুরতো । আর তার ঘূর্ণনের পজিশন অনুযায়ী ভিতরের প্লাস্টিকের চাকা ওয়ালা রোলার দুটি ঘুরতো । ভার্টিক্যাল রোলারটা ঘুরলে মাউস কার্সরটি মনিটরে X অক্ষ বরাবর মুভ করতো, অর্থাৎ শুধু উপর-নিচ করতো । আর হরাইজন্টাল রোলারটা ঘুরলে মাউস কার্সরটি মনিটরে Y অক্ষ বরাবর মুভ করতো, অর্থাৎ শুধু এপাশ থেকে ওপাশে যেতো ।

তাই, দুটো এক সাথে রোল করলে মাউস কার্সরটি মনিটরের যেখানে নিতে চাই সেখানেই নেয়া যেত জাস্ট মাউসটা একটু মাউস প্যাডে ঘষে লোহার বলটা ঘুরিয়ে । এই মাউস তখন অনেক ভারী হতো ওই লোহার বলটার কারণে । আর অভ্যাস করতে কারো কারো ৬-৭ দিনও লেগে যেত । আমি তো মাউস চালাতেই পারতাম না ঠিক মতো, কার্সর নিজের পছন্দমত জায়গায় আনতে ঘাম ছুটে যেত । প্রায় দু'সপ্তাহ লেগেছিলো মাউসে নিজের হাত মানিয়ে নিতে ।

তবে, একটা সত্যি কথা বলি । এখনকার বিশাল দামি দামি কর্ডলেস অপটিক্যাল মাউসের চাইতে আগেরকার আমলের বল মাউস আমার বেশি প্রিয় । যদিও এখন তারা বিলুপ্ত ।

এবার শুরু করা যাক গেমের গল্প । আমি জীবনে অসংখ্য গেম খেলেছি । এখানে মাত্র ৭ টি গেমের কথা লিখলাম । পরে টাইম পেলে আবার কোনো একদিন আরো কয়েকটি পুরোনো গেমের কথা লিখবো ।

১. Road Rash


জীবনের প্রথম খেলা কম্পিউটার গেম । আমেরিকার বেশ কিছু জনপ্রিয় রাস্তায় ১৫ জন বাইকারের সাথে রেসিং । দুটো মোড ছিল খেলার । একটি ছিল সিঙ্গেল প্লেয়ার । আরেকটি ক্যারিয়ার বিল্ডআপ । প্রথমটিতে যে কোনো রাস্তায় একটি মাত্র সিংঙ্গেল রেস দেওয়া যেত। দ্বিতীয়টি ছিল ভীষণ আকর্ষণীয় । অনেকগুলো লেভেল ছিল । এক এক লেভেলে এক এক রকমের বাইক দরকার পড়তো । তাই নিচের দিকের লেভেলগুলোতে খেলে খেলে রেসে বিজয়ী হয়ে প্রাইজ পেয়ে তা দিয়ে নতুন দামি রেসিং বাইক কিনতে হতো । নাইট্রো বুস্টার কিনতে হতো ।

গেম খেলার সময়ে বিপক্ষের বাইকারদের ঘুষি, কিল, লাথি মেরে ফেলে দেয়ার সুযোগ থাকতো । এই লাথি মেরে ফেলে দেওয়াটা ভীষণই এনজয় করতাম আমি । আর যদি রেস দেয়ার সময়ে কোনো পথচারীকে মেরে বসো তো ব্যাস হয়ে গেলো । পুলিশের বাইক হুইসল বাজিয়ে পিছু ধাওয়া করবে । ধরতে পারলে রেস ওখানেই খতম । অনেকগুলি রাস্তায় রেস দেয়া যেত । এর মধ্যে আমার সব চাইতে পছন্দের রোড ছিল "সিয়েরা নেভাদা" ।


২. House of the Dead


ফার্স্ট পার্সন শুটিং গেম হিসেবে এই গেমটি আমার ছোটবেলার নস্টালজিয়া । ভীষণই প্রিয় ছিল একই গেমটি । একটি হন্টেড হাউজে শয়তান এক বিজ্ঞানী অনেক ধরণের ঘোস্ট আর জোম্বি তৈরী করে । আটকে রাখে সোফিয়া কে । গেমের নায়ক একটি মাত্র পিস্তল আর আনলিমিটেড গুলি নিয়ে হাজির হয়ে যায় সোফিয়াকে উদ্ধার করতে । ঝাঁপিয়ে পড়ে ভূত-প্রেত আর জোম্বিরা তার উপরে । চলে গুলির ওপর গুলি । এক একটা লেভেল এর শেষে থাকে এক জন করে মাস্টারপিস জোম্বি । তাকে খতম করতে পারলে নেক্সট লেভেল । দারুন এক্সসাইটমেন্ট ছিল এই গেমটিতে । অসংখ্যবার খেলেছি এটি ।


৩. Age of Empires


মাইক্রোসফটের এই স্ট্রাটেজি গেমটি তখন ব্যাপক সাড়া ফেলে দিয়েছিলো । আমার অসম্ভব পছন্দের গেম ছিল এটি । ঘন্টার পর ঘন্টা ধরে খেলতাম গেমটি । গেমের শুরুতে ৪-৫ জন নারী-পুরুষ থাকতো । আর একটি টাউন হল । এদেরকে নিয়েই খেলা শুরু হতো । ফুড, স্টোন, উড, গোল্ড এগুলো সংগ্রহ করে আস্তে আস্তে পপুলেশন বৃদ্ধি করে উন্নয়ন করতে হতো । ধীরে ধীরে ঘরবাড়ি, কল-কারখানা, ব্যারাক, শিপ ইয়ার্ড, খনি, মার্কেট এসব তৈরী করতে হতো । নানান রকমের অস্ত্র, সৈন্যবাহিনী প্রস্তুত করে হামলা করতে হতো বিপক্ষ রাজ্যকে । এক একটা AGE আপগ্রেড করতে করতে আদিম একটি জনগোষ্ঠী থেকে মধ্যযুগীয় উন্নত একটি রাজ্যে পরিণত করতে হতো । এরপরে শুধু যুদ্ধ আর যুদ্ধ । বিপক্ষ রাজ্যকে ধুলোয় মিশিয়ে দিতে পারলেই ভিক্ট্রি ।


৪. Cossacks European Wars


রাশিয়ানরা টেক্কা দিয়েছিলো আমেরিকা'কে এই গেমটি ডেভেলপ করে । গেমের ধরণ মাইক্রোসফটের Age of Empires এর মতোই স্ট্রাটেজি গেম । কিন্তু, গ্রাফিক্স, সাউন্ড থেকে শুরু করে গেমের স্টাইল এবং স্টোরী অনেক বেশি উন্নত । এখানেও, গেমের শুরুতে অল্প কয়েকজন সিভিলিয়ান দেয়া থাকতো । তাদেরকে নিয়েই ধীরে ধীরে একটি ধনী ও সামরিক শক্তিতে উন্নত সাম্রাজ্য গড়ে তুলতে হতো । Age of Empires এ শুধু তলোয়ার-তীর ধনুকের লড়াই হতো । কিন্তু Cossacks European Wars এ বন্দুক, পিস্তল, রাইফেল, কামান ছিল । তাই লড়াইটা জমতো ভীষণ রকম ভাবে । এই জন্য, এই গেমটি আমার দারুন ফেভারিট ছিল । এটিই একমাত্র গেম যেটি এখনো খেলি সময় পেলে । বিগত ২২ বছর ধরে খেলে আসছি । মজা একটুও কমেনি ।


৫. Hitman


আমার বন্ধুদের মধ্যে একমাত্র আমিই এই গেমের সবগুলো লেভেল পাস করতে পেরেছিলাম । যারা হিটম্যানের ভক্ত তারাই জানেন লেভেলগুলো কতটা চ্যালেঞ্জিং হয়ে থাকে । একটি গোপন এজেন্সি । তারা হিটম্যান তৈরী করে । ক্ষুরধার ব্রেইন, অসম্ভব শারীরিক শক্তি আর যে কোনো অস্ত্র চালনায় বিশ্বের মধ্যে নিঃসন্দেহে প্রথম শ্রেণীর । যে কোনো টপ লেভেলের assassination এর কাজে বা গোপন যে কোনো মিশনে হিটম্যান সাকসেস । গোটা একটি সেনাবাহিনীর মধ্যে ঢুকে যাকে খতম করার দরকার তাকে ঠিকই খতম করে বিড়ালের মতো নিঃশব্দে কাজ সেরে বেরিয়ে আসে । একটি নেগেটিভ ক্যারেক্টার যে কতটা পপুলারিটি অর্জন করতে পারে তা হিটম্যানের মতো গেম বাজারে না এলে বোঝাই যেতো না । আমাদের সমসাময়িক সব বন্ধুদের হিরো ছিল হিটম্যান । আমি এখনো ভক্ত । তাই, স্যুটেড বুটেড হলে হিটম্যানের মতোই ড্রেসআপ করি । কালো কোট, সাদা শার্ট, লাল টাই ।


৬. EA Sports Cricket 2000


স্পোর্টস গেম যতগুলি ছিল তার মধ্যে EA sports এর এই ক্রিকেট গেমটিই আমার কাছে সবার সেরা মনে হতো । ঘন্টার পরে ঘন্টা খেলতাম এই গেমটি । ওয়ান ডে, টেস্ট, ১০ ওভারের ম্যাচ, ২০ ওভারের ম্যাচ সবই খেলতাম । বিশ্বকাপ , টুর্নামেন্টও খেলতাম । বন্ধুদের নাম অ্যাড করে করে নিজের টিম গঠন করেও খেলতাম । অসম্ভব প্রিয় ছিল আমার এই ক্রিকেট গেমটি ।


৭. Need For Speed


কার রেসিং গেমের মধ্যে এটিই ছিলো আমার সব চাইতে প্রিয় গেম । যারা এই গেমটি খেলেছেন তারাই বুঝতে পারবেন এর আকর্ষণীয় ক্ষমতা । গ্রফিক্স, সাউন্ড দারুন কোয়ালিটির । রেস খেলাও বেশ ইজি । গেমের কন্ট্রোলটি নাইস । এতো easy কন্ট্রোল আর কোনো কার রেসিং গেমে আমি দেখিনি । গাড়িগুলোর মডেলগুলোও ছিলো জাস্ট ওয়াও । পরিশেষে রেসিং রোড গুলির কথা না বললে অপূর্ণ রয়ে যাবে । অনেকগুলো সাপের মতো আঁকা বাঁকা রোডে রেস করতে হতো । রাস্তার দু'পাশের প্রাকৃতিক দৃশ্যাবলী খুব নিখুঁতভাবে তৈরী করা হয়েছিল । ফলে রেসিং এর সময় ফিলিংসটা ছিল জাস্ট অসাম ।


Authors get paid when people like you upvote their post.
If you enjoyed what you read here, create your account today and start earning FREE STEEM!
Sort Order:  

দাদা এই কম্পিউটার গেমসের জন্য কত মার খেয়েছিস হিসাব ছাড়া। কয়েন দিয়ে কম্পিউটার গেমস খেলার অনুভুতি ছিল অন্যরকম। খেলার জন্য জায়গা পেতাম না, গিয়ে দাঁড়িয়ে থাকতাম পিছনে, দেখতাম কিভাবে খেলে, দেখতে দেখতেই শিক্ষা। যেই সময়টা কম্পিউটার গেমসের দোকান আসতাম তাতেই কৈফিয়তের শেষ ছিল না। তবে আপনি অনেক নিখুত ভাবে গুছিয়ে পর্যায়ক্রমে খুব সুন্দর করে লিখেছেন হয়তো আমার পক্ষে সম্ভব নয়। বলেও বুঝানো সম্ভব না। আপনি ঠিকই বলেছেন প্রথমে মোটরসাইকেল গেমিং ছিল পরবর্তীতে বিভিন্ন ধরনের গেমস তৈরি হয় এবং সেগুলো আরো বেশি আকর্ষণীয় ছিল। এবং আপনি খুব সুন্দর আপনার গেমিং আগমন থেকে শুরু করে এ পর্যন্ত সুন্দর করে গুছিয়ে লিখেছেন। আপনার জন্য রইল ভালোবাসা অবিরাম।

কতো আগেকার গেম এসব! এখন তো এসব গেম পাওয়ায় যায় না। কখনো কম্পিউটারে গেম খেলা হয়নি। ছোটবেলায় জাস্ট মামার ফোনে রোড রেস গেমটা খেলেছিলাম। এখন ফোনে কোনো গেমই নেই। আপনার গেমের এক্সপেরিয়েন্স পড়ে তো কিছু গেম নামাতে ইচ্ছে করছে 🙂।

দাদা, House of the dead এটা যখন খেলতাম একটা অন্যরকম মজা পেতাম। মাউস চাপতে চাপতে যেন আঙ্গুল ব্যাথা করে ফেলতাম,, আর সব ভুত পেত্নীর মাথা ফাটাতাম। হিহিহিহি। Need for speed একটা মারাত্মক গেইম দাদা,👌। এখনও সুযোগ পেলে বসে যাই । খেলার সময় মনে হয় এমন করে যদি বাস্তবেও গাড়ি চালাতে পারতাম 😉।

This post has been upvoted by @italygame witness curation trail


If you like our work and want to support us, please consider to approve our witness




CLICK HERE 👇

Come and visit Italy Community



সব মাথার উপর দিয়ে যাচ্ছে, কম্পিউটার রে গেমস খেলি নাই বললেই চলে।বাসায় কম্পিউটার ঢুকেছে অনেক দেরিতে।তবে শুধু একটা গেমস খেলাতাম তা হচ্ছে কেক ডেকোরেশন এর একটা গেমস😜😜।এটাই প্রথম ছিলো।হা হা।

  ·  5 days ago (edited)

আশ্চর্য জনক হলেও সত্য আমি কখনো কম্পিউটারে গেম খেলিনি । যদিও কম্পিউটারে আমার হাতে খড়ি ২০১১তে এবং ২০১৫ থেকে নিজের ল্যাপটপ আছে । কিন্তু আমার পার্সোনাল ল্যাপটপ কেনার পুর্ব থেকেই আমি সামাজিক মাধ্যম গুলোতে বেশি সময় দিতাম ভার্চুয়ালি অনেক বন্ধুও হয়ে ছিল, সারাদিন তাদের সাথে আড্ডা গল্প ।

তাই এই গেম গুলোর নাম পর্যন্ত আমার জানা ছিল না । ২০০৯এ আমার এক ক্লাসমেট + মেসমেট কে দেখেছি কম্পিউটার বুথে যেয়ে ২০ টাকা ঘন্টা চুক্তিতে গেম খেলত । আমি একদিন ওর সাথে ৫/১০ মিনিটের মত সময় ব্যয় করেছি ।

পুরোনো দিনের গেমের নাম এবং বিবরণ যেনে ভাল লাগলো । কিছু গেম এখনো যে স্থায়ী হয়ে আছে এটা ভেবেই আমি অবাক । কিছু মোবাইল গেম দেখেছি যেগুলো দুই/এক বছর রাজত্য করে হারিয়ে যায় এর তুলনায় পুরানো দিনের গেম গুলোর প্রাপ্তিটা বেশিই বলা যায় ।

তবে দাদা লোহার বল দেওয়া সেই মাউসটা দেখতে বড় মন চাইছে ।
যদি এমন কোন ব্যবহার উপযোগী মাউস পাওয়া যেত তাহলে পুরোনো দিনের ফিলিংস নেওয়া যেত ।

এর মাঝে রোড রাসটা হয়তো আমি অল্পবিস্তর খেলেছি কাজিন বড় ভাই এর কম্পিউটার এ।আর গুলোর কথা খুব বেশি মনে পরছেনা দাদা।

এটা একদম ঠিক বলেছেন দাদা, তখনকার মাউসগুলো সবাই চালাতে পারতো না ঠিক মতো। আর মাউসের ভিতরের সেই বলটি বেশ আকর্ষনীয় বস্তু ছিলো আমার নিকট। মাঝে মাঝে মাউস থেকে খুলে সেটা নিয়ে খেলা করতাম, হি হি হি । তবে আমি অতো বেশী গেম খেলার সুযোগ পাইনি কিন্তু Road Rash এবং House of the Dead বেশ খেলেছিলাম।

দাদা আপনার শৈশবের অনেক স্মৃতি জড়িয়ে আছে এই গেমস গুলোর সাথে। কম্পিউটার গেমসের সাথে খুব একটা পরিচিত ছিলাম না। কারণ আমি গ্রামে বড় হয়েছি। তাই বিজ্ঞান প্রযুক্তির ছোঁয়া তখনও গ্রামে খুব একটা ছিল না তবে আপনার পোস্ট পড়ে বিভিন্ন ধরনের গেমস সম্পর্কে অনেক আইডিয়া পেলাম।আপনি অনেক সুন্দর ভাবে আপনার পুরনো স্মৃতি এবং পছন্দের গেমসগুলো সম্পর্কে উপস্থাপন করেছেন এজন্য আপনাকে জানাচ্ছি ধন্যবাদ। শুভকামনা ও ভালোবাসা রইলো দাদা।♥️♥️♥️

দাদা আমার এই গেমস গুলা খেলা হয়েছে, বাকি গুলো খেলা হয়নি।
Road Rash
এই গেমসটি খেলার সময় অন্য বাইকার থাকলে তাকে নিজের গাড়িতে থেকে ধাক্কা মারা যেত বা লাথি মারা যেত। তখন অন্য বাইকার কিছুটা দূরে সরে যেত মজা ছিল অনেক।
House of the Dead
এই গেমসটি কিছুটা ভয়ঙ্কর লাগতো এ গেমস এর সাউন্ড কিছুটা ভৌতিক যার কারণে খেলতাম তবে ভয় পেতাম।
EA Sports Cricket 2000
এই গেমসটা খেলার পেছনে অনেক মজার কিছু স্মৃতি রয়েছে।এটা কম্পিউটার বনাম নিজ আবার দুই পক্ষ নির্ধারণ করে নিজেরা নিজেরা খেলা যেতে। তখন আমরা দুই বন্ধু বাজি ধরতাম। একবার আমি খেলতাম একবার ওকে খেলতে দিতাম এভাবে বাজি ধরে মজা নিতাম। যে হারতো সে কিছু খাওয়াতে হতো। এই গেমসটা এখনো আমার কম্পিউটারে রয়ে গেছে, এটা ছাড়াও আরো * অনেকগুলা পুরনো গেমস আমার কম্পিউটারে এখনো আছে।
Need For Speed
এ গেমসটি খেলেছি তবে অন্যান্য গুলো থেকে খুব কম।

তবে আপনার আজকের এই ব্লগে অনেক কিছু জানতে পারলাম। আমরা তো শুধু খেলেছি তবে কখনো রিচার্জ করিনি অনেক ধন্যবাদ দাদা আপনাকে।

আপনার এই গেমস গুলোর মধ্যে কিছু কিছু গেমস আমিও খেলেছি। Age of Empires, house of the deed এই দুটি গেম অনেক খেলেছি। এর মধ্যে house of the deed গেমটি খুব ভালো লাগতো। কতবার যে খেলেছি তার শেষ নেই।

দাদা আপনি তো দেখছি গেম খেলায় পটু ছিলেন। আমি ছোট বেলায় এভাবে কখনো গেম খেলার সুযোগ পায়নি।ছোট বেলায় এভাবে গেম খেলায় কিন্তু আলাদা অনুভূতি কাজ করতো সেটা ভালোই বুঝতে পারছি দাদা।অনেক ভালো লাগলো ছোট বেলায় কম্পিউটারে গেম খেলার অনুভূতির গল্প পড়ে।

Hi @rme,
my name is @ilnegro and I voted your post using steem-fanbase.com.

Come and visit Italy Community

বর্তমান সময়ে যতই আধুনিক গেম থাকুক বাজারে, নব্বই দশকের গেমগুলো তখনকার ছেলেপেলের যে রকম আনন্দ দিতো তা এখন কখনোই সম্ভব না।

গেম আমার খুব পছন্দের একটা জিনিস। কিন্তু ছোটবেলায় খেলার তেমন সুযোগ পাইনি। যখন সুযোগ পেয়েছি ওই সময়ে ভাইসিটি, আইজিআই, এই গেমগুলো আমার প্রিয় হয়ে উঠেছিল।

দাদা আপনি যে গেমসগুলোর কথা বলেছেন প্রত্যেকটি গেম আমি খেলেছি। শুধুমাত্র Cossacks European Wars এই গেমটি বাদে। আসলেই কম্পিউটার গেমসের জগতে এই গেমগুলো ছিল একেকটা মাইলস্টোন। বর্তমানকালে অসাধারণ গ্রাফিক সম্বলিত অনেক ভালো ভালো গেম আসলেও কোনো গেমসই এত জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পারেনি। তবে আমার কাছে সবচেয়ে ভাল লেগেছিল এজ অফ এম্পায়ার এর লাস্ট সিক্যুয়াল এজ অফ মিথলজি গেমটি।

road rash , need for speed , hitman, house of the dead এই চারটি গেম খেলার আমারও সুযোগ হয়েছিল ভাই । সেকি অবস্থা , একেকটা লেভেল যেন একেকটা অতীত। কত শত মা বাবার বকুনী কত শত অভিমান ও অনুভূতি যে জড়িতে আছে তা বলার বাহিরে । জাস্ট আবেগে ভাসিয়ে দিলেন ভাই ।

দাদা আমিতো কখনো এসব গেইম খেলিনি তবে আমার দুই একজন বন্ধু মার্কেটে গিয়ে টাকা ‍দিয়ে ঘন্টায় কম্পিউটার ভাড়া নিয়ে গেইম খেলতো। আর আমি সাইকেল ভাড়া নিয়ে রাস্তায় সাইকেল চালাতাম। ২০০৬/০৭ সালের দিকে হবে। আমি তখন কম্পিউটার সম্পর্কে বেশি কিছু বুঝতাম না। তাই খেলতে পারিনি। যাক দাদা আপনার শৈশব কৈশব তাহলে অনেক আনন্দে কেটেছে। ধন্যবাদ দাদা নতুন কিছু সম্পর্কে ধারনা পেলাম।

দাদা আপনার শৈশবের দিনগুলো অনেক আনন্দের সাথে কেটেছে। কারণ তখন কম্পিউটারে গেম খেলা খুবই দুর্ভাগ্য ছিল সকলের জন্য, আমরা কম্পিউটার গেম খেলার জন্য সেই বাজারে যেতাম এবং টাকা দিয়ে কম্পিউটারে গেম খেলতাম। আপনি খুবি গেম পাগল ছিলেন। তারপরেও গেম খেলার দেখার একটা নেশা ছিল এবং বড় ভাইদের গেম খেলা দেখতাম তাদের গেম খেলা শেষে আমরা খেলতাম অনেক মজা হতো। আজকে আপনার গেম খেলার সেই অনুভূতি গুলো জানতে পেরে অনেক ভালো লাগলো।

এর মধ্যে একটি কম্পিউটার গেমস ও আমি খেলিনি। আমার ভাইকে দেখতাম খেলত। আমার কখনো আগ্রহই জানিনি কম্পিউটারে গেমস্ খেলতে। তবে মোবাইলে অনেক গেম খেলেছি। এখন আর মোবাইলে গেমস খেলতেও আগ্রহ জাগে না।

আমার জীবনের প্রথম গেমস ছিল Road Rash . খুব এনজয় করতাম আমি। সেই ভারী মাউস দিয়ে আমিও খেলেছি House of the Dead এখানকার কমবেশি সবগুলো গেমে আমার খেলা হয়েছে, আগে গেম খেলার জন্য সন্ধ্যায় পড়তে বসতাম তাড়াতাড়ি পড়াশোনা শেষ করে রাতের বেলা গেম খেলতে বসলাম আশেপাশে আরও দুতিনজন থাকতো তারা আমার গেম খেলা দেখতো আমরা সবাই মিলে গেম খেলতাম একটা অন্যরকম ভালোবাসা ছিল সবার মধ্যে, এখন সবার পার্সোনাল কম্পিউটার থাকলেও গেম খেলার সেই মজাটা এখন আর নেই।

দাদা কুড়ি বছরের পুরোনো কিছু কম্পিউটার গেমস গুলো আবার নতুন করে ঝালিয়ে নিচ্ছেন মনে হচ্ছে। সত্যি কথা বলতে আমি কখনো কম্পিউটারের বা ভিডিও গেমসের হাউসগুলোতে ভিডিও গেম খেলি নি তবে বেশ কয়েকবার গিয়েছি সেখান থেকে আমার ভাগ্নেকে ধরে আনতে।
যাই হোক দাদা আপনি সাতটি গেমসের উল্লেখ করেছেন। প্রত্যেকটা গেমের মধ্যে সুন্দর একটা গল্প আছে। Road Rash ছাড়াও আরো দু'একটি গেম আমি মোবাইল ফোনে খেলেছিলাম প্রায় একইরকম আমার কাছে ভালো লাগতো। পুরনো স্মৃতিগুলো মনে পড়লে মাঝে মাঝে খুব ভালো লাগে। নিশ্চয়ই আপনার কাছেও লিখতে খুব ভালো লেগেছে।
ধন্যবাদ আপনাকে দাদা।

দাদা,কুড়ি বছর আগেও যে এতগুলো কম্পিউটার গেমস ছিল জেনেই ভালো লাগছে।আপনার মাধ্যমে প্রত্যেকটি গেমসের আলাদা আলাদা বর্ননা পড়ে বুঝতে পারলাম।তবে আমি এখনো গেমস খুব কম বুঝি।আর ওই সময়ে আপনি কম্পিউটারে সময়ও দিতেন সেখানে আমার মনে হয় অন্যান্য অধিকাংশ ছেলেমেয়েরা কম্পিউটারের ধারে কাছে ও যেত না।হয়তো তাঁদের কাছে কল্পনার রাজ্যের মতো ছিল। ধন্যবাদ দাদা,ভালো থাকবেন।

Road Rash শুনলেই আমার কেমন যেন নস্টালজিয়া ফিল হয়। CRT মনিটরে Napa Valley র উপর দিয়ে বাইক ছুটছে আর আমি সজোরে লাথি কষাচ্ছি। হিঃ হিঃ

দাদা আমরা সকলেই জানি আপনি গেম প্রিয় মানুষ। আপনি জীবনে অনেক গেম খেলেছে তবে আপনি যে সব গেম নিয়ে কথা বললেন, তার মধ্যে নিড ফর স্পিড এই গেমটি আমি খেলেছি এবং সেই গেমটি সত্যি অনেক দুর্দান্ত। ছোটবেলার আরো অনেকগুলো গেম খেলেছিলাম তবে সেগুলো মোবাইল এর মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল। যখন মোবাইল হাতে আসলো তখন কার গেম গুলো একটু অন্যরকম ছিল। তার মধ্যে নোকিয়া মোবাইলের সাপ গেমটি অন্যতম। যাইহোক দাদা অনেক ভালো লাগলো।